মাসুম বিল্লাহ এর পাঁচ কবিতা।

0
107

ভালোবাসার স্মৃতিরোমন্থনঃ

প্রথম কবে তোমায় ভালোবেসে ছিলাম, মনে নেই

প্রথম কবে তোমায় চিঠি লিখেছিলাম, মনে নেই

প্রথম কবে তোমায় লাল গোলাপ দিয়েছিলাম, মনে নেই

প্রথম কবে তোমায় নিয়ে_ খোলা আকাশের নিচে, নদীর তীরে সবুজ ঘাসের উপর, তোমার হাত ধরে বসে ছিলাম মনে নেই তাও।

শুধু মনে আছে, নদীর তীরে একলা হয়ে হেটেছি আমি আনমনা হয়ে।

প্রথম কবে ছুয়েছিলাম তোমায় আমি, মনে নেই

প্রথম কবে চেয়েছিলাম তোমার জন্য আকাশের কছে নীল পদ্ম ভালোবাসা, মনে নেই

প্রথম কবে চেয়েছিলম আমি বৃষ্টির কাছে সময়, মনে নেই

প্রথম কবে চেয়েছিলাম বাতাসের কাছে সুখের নিশ্বাস, মনে নেই তাও

শুধু মনে আছে, প্রথম কবে চেয়েছিলাম_,

আকাশের কাছে গ্রীষ্মের কাছে তাপদাহ, বাতাসের কাছে কাল বৈশাখীর ঝড়।

আর মনে আছে,

চলে গিয়েছিলে আমায় ফেলে,

কি অনলে বক্ষ জ্বেলে।

অথচ, আজও আমি কাব্য লিখি তোমার জন্য।

মিথ্যের অভিনয়ের পাশাপাশি আজও বলে যাচ্ছি, ভালো আছি।

আমার মুখের ব্যর্থ  নির্গত বুলি, ভালো আছি।

 

নিশিকাব্যঃ

যখন আমি নিশিরাতে পড়তে বসি একাকী হয়ে,

কাব্যের পৃষ্ঠার পরিবর্তে খুলে ফেলি আমার মনের প্রতিচ্ছবি।

অবাক বিস্ময় চেয়ে থাকি বইয়ের পরিচয় পেয়ে-

নামটা তার “কষ্টের প্রতিচ্ছবি”

মনের অনুভূতি অদ্ভুত হলো যখন দেখি-

বইয়ের উৎসর্গের পরিচয় “কালজয়ী মৃত্যু”

বইটির সর্বপ্রথম ভাষ্য কী, জানতে চাও?

তবে শোন, “অব্যক্ত ভালোবাসা”

বইটির প্রথম শিরোনাম থেকে শোষক্ত শিরোনামের অংশবিশেষ হচ্ছে এই-

“সর্বজয়ী ভালোবাসা নামক অনুভূতিকে কালজয়ী মৃত্যুর কাছে পরাস্থ করা”

বুজলাম, পবিত্র ভালোবাসাকে মাটিচাপা দিয়ে চিরশত্রু ছলনাকে জয়ী করা।

শেষের অনুচ্ছেদের প্রতিপাদ্য বিষয় আর নাই বা বললাম-

একরাশ আবেগের সংমিশ্রনে গড়া মিথ্যে বিশ্বাস।

অবশেষে বুঝতে পারলাম আমি

তুমি কেনো ছিলে না আমার।

আজও আমি মিথ্যে গুজব গুনগুন করে যাই,

এই নিশিরাতের অপূর্ব সৌন্দর্যের ভিড়ে-

ভালোবাসি!

ভালোবাসি!!

শুধু তোমায় ভালোবাসি!!!

 

লতাকন্যাঃ

পূর্ণিমা রাতে

বসে আছি আমি

উঠোনের এক কোনে চুপিসারে,

হঠাঁৎ দেখি-

পেয়াঁড়া গাছের পাশ দিয়ে

চোখের ঝিলিক মারো আমার দিকে।

কিন্তু আমি,

তোমার সব জ্যোৎস্না, আলো

আমার সর্ব অঙ্গে মেখে নি

তাতে তুমি রাগ করো না।

কিংবা হারিয়ে যাওনা কখনো

আমার এই জীবন থেকে।

শুধু কষ্ট যে,

স্পর্শ  কিংবা (কাছে পেতে) আমি

পারিনা তোমায় কখোনো।

শুধু দূর থেকে বসে

দেখাই দিয়ে গেলে,

আর তোমার ভালোবাসার আশ্মাস।

চাইনা তোমায় দেখতে

চাইনা তোমার আলো, জ্যোৎস্না কিংবা ভালোবাসা।

তুমি চলে যাও আমার জীবন থেকে,

হারিয়ে যাও আমার স্মৃতি থেকে।

জানি না লতাকন্যা

এটা আবেগ নাকি ভালোবাসা?

 

প্রতিক্ষাঃ

আজ আমি তোমায় নতুন করে দেখলাম

নতুন রূপে,  নতুন সাজে

যেনো মায়াবতী।

আর তখন মনে পরে গেল

বছর খানি পূর্বের কথা

যখন তুমি আমার ছিলে,

শুধু আমার জন্য সাজতে

আমার জন্য হাঁসতে।

কিন্তু,

আজ দেখি তুমি অন্যের

অন্যের জন্য সাজো

অন্যেরর জন্য হাঁসো।

অথচ আজও আমি দাড়িয়ে থাকি

তোমার জন্য সেই চেনা পথে,

আর তাকিয়ে থাকি নিশুন্য শুন্যস্থানে।

 

 

ভালোবাসো যদি আমায়ঃ

ভালোবাসো যদি আমায়,

তবে আজ সবকিছু ছেড়ে দিয়ে

নতুন করে লিখবো  প্রেম এর কবিতা

তোমার তরে।

নতুন কারে সাজাবো তোমায়

সাজাবো এই শহরকে,

সাজাবো এই শহরের প্রত্যেক মানুষকে।

ধূলো বালির মুগ্ধতায় মিশে রবে

তোমার পবিত্র ভালোবাসার অনুভূতি।

ভালোবাসো যদি আমায়,

উম্মুক্ত করে দেব আমার এ ভালোবাসা

থাকবে না এই শহরে নগ্নতার প্রেম

থাকবে শুধুই তোমার আমার প্রেম এর অকুণ্ঠ ছোয়াঁ।

শহরের আনাচে কানাচে শুধুই থাকবে তোমার আমার নাম।

ভালোবাসো যদি আমায়,

তবে এই শহরে নিষিদ্ধ করবো প্রেমের নামে অবহেলা

প্রত্যেক বঞ্চিত যুবক-যুবতীকে তুলে দেব

তার ভালোবাসার মানুষটির কাছে

আর আমি,

তোমায় নিয়ে সাত সাগর পাড়ি দিয়ে

শান্তিপুরে বাধবো বাড়ি,

ভালোবাসো যদি।

 

নামঃ মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ

ছাত্রঃ মিরপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ

 

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here