মাদার্শীতে ব্রিজ পুনর্নির্মাণ না হওয়ায় ৪ উপজেলার ১০ লাখ মানুষের ভোগান্তি।

0
91

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ার মাদার্শীতে শুক্রবার (১১ আগস্ট) রাতে দুটি পাথরবোঝাই ট্রাক বামনের খালের সেতু পার হওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। ফলে পিরোজপুর-ভাণ্ডারিয়া-মঠবাড়িয়া-পাথরঘাটা সড়কের বিভিন্ন রুটের যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

মঠবাড়িয়া-পিরোজপুর সড়কের মাদার্শী নামক স্থানের একটি জনগুরুত্বপূর্ণ বেইলী ব্রিজ ভেঙ্গে যাওয়ার ৫ মাসেও নির্মাণ না হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের চার উপজেলার ১০ লাখ মানুয়ের চলাচলে ভোগান্তি চরমে। ভাঙ্গা ব্রিজের ২০ ফুট দূরে কাঠের পুল নির্মাণ করলেও তা দিয়ে কোন যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।

পিরোজপুর জেলা পরিষদের সদস্য (ইকরী-তেলীখালী-ধাওয়া) আব্দুল হাই হাওলাদার জানান, সাতক্ষীরার ভোমরা থেকে দুটি পাথরবোঝাই ট্রাক পিরোজপুর হয়ে মঠবাড়িয়ার দিকে যাচ্ছিল। শুক্রবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে পাথরবোঝাই ট্রাক দুটি একসাথে মাদার্শী এলাকার বামনের খালের ওপরে থাকা সেতুর ওপর উঠলে তা ভেঙে  খালে পড়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, গভীর রাতে বিকট শব্দ পেয়ে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। এ ঘটনার পর থেকে ট্রাক দুটির চালক ও হেলপার পলাতক আছেন।

এ ব্যাপারে পিরোজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘সেতুটি আগে থেকেই ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। অতিরিক্ত পণ্যবোঝাই ট্রাক সেতুতে ওঠার কারণে তা ভেঙে গেছে।

পিরোজপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম জানান, মাদার্শী এলাকার বামনের খালের সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় সড়ক বিভাগের পক্ষ থেকে পাঁচ টনের বেশি মালামাল নিয়ে সেতু পার হতে নিষেধ করা হয়েছিল। এ রকম একটা সাইনবোর্ডও টানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তারপরও অতিরিক্ত পণ্য নিয়ে সেতু পার হতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটল।

নির্বাহী প্রকৌশলী আরও বলেন, সরকারি সম্পত্তির ক্ষতিসাধন করায় ট্রাক দুটির মালিকের বিরুদ্ধে ভাণ্ডারিয়া থানায় মামলা করা হবে। সেতু ভেঙে যাওয়ার কারণে শনিবার সকাল থেকে পাথরঘাটা, মঠবাড়িয়ার সঙ্গে পিরোজপুর, ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল, খুলনাসহ বেশ কয়েকটি রুটে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

ভাণ্ডারিয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আতিকুল ইসলাম উজ্জল তালুকদার বলেন, ‘শিক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ যাতে বিনা টাকায় নৌকা দিয়ে খাল পারাপার হতে পারে সে জন্য উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে পিরোজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগ এর নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম মঠবাড়িয়া-পিরোজপুর সড়কের মাদার্শীর বেইলী ব্রিজটি ভাঙ্গায় জনদুর্ভোগের কথা স্বীকার করে বলেন, ৭২ লাখ টাকা ব্যয়ে টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছিল। ইফতি কনষ্ট্রাকশন কার্যাদেশ পেয়ে কাজও শুরু করেছে। আগামী জানুয়ারী মাসের মধ্যে সেতু নির্মাণ কাজ শেষ করে যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here